মৃত দেহ বাংলাদেশ নিয়ে যেতে সমস্যায় পড়েছেন পরিবারের লোকেরা। দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার হিলি বর্ডার দিয়ে মৃতদেহ যাওয়ার সময় বিএসএফের কর্তারা উপযুক্ত কাগজ না থাকার ফলে সেই মৃতদেহ ফিরিয়ে দেওয়া হয়।। এদিকে শুক্রবার সকালে মৃতদেহ ফিরিয়ে এনে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্তের সামনে বারান্দায় মৃতদেহ রাখা হয় ইতিমধ্যে মৃতদেহ থেকে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে চরম সমস্যায় পড়েছেন ওই পরিবার। পরিবার সূত্রে জানা যায় গত শুক্রবার বাংলাদেশের চাঁপাইনবাবগঞ্জ থানার বেনীচক গ্রামের দুই বাসিন্দা মালদার মঙ্গলবাড়ী খইহাটটা গ্রামে ঘুরতে আসে আত্মীয়র বাড়িতে। এরপরে বুধবারের দিন সেখান থেকে মালদা শহরের বুড়াবুড়ি তলা আত্মীয় বাড়িতে ঘুরতে আসে। অসুস্থ হয়ে যায় এবং মেডিকেল কলেজে ভর্তি করলে মারা যায়। বৃহস্পতিবার মৃতদেহ ময়নাতদন্ত করা হয়। বাংলাদেশ বডি নিয়ে যাওয়ার জন্য জেলা প্রশাসনের তরফ থেকে লিখিত আনা হয়। মৃতদেহ নিয়ে যায় হিলি বর্ডার দিয়ে যাওয়ার সময় সেখানে আটকে দেওয়া হয় বিএসএফের পক্ষ থেকে। পুনরায় বডি ঘুরিয়ে এনে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মর্গের সামনে।

ইতিমধ্যে বডি দিয়ে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে। নিরুপায় হয়ে বডি নিয়ে তারা মেডিকেল কলেজে বসে রয়েছেন। তাদের দাবি বডি কিভাবে তারা বাংলাদেশে নিয়ে যাবে সে অপেক্ষায় তারা বসে রয়েছেন। সরকারের কাছে আর্জি জানাচ্ছেন তাদের বডি পুনরায় বাংলাদেশের যাতে ফিরিয়ে দেওয়া হয়। পরিবার সূত্রে জানা যায় মৃতদেহ ব্যক্তির নাম শ্রীমন্ত কর্মকার বয়স( ৫০ ) বছর তার বাড়ি বাংলাদেশের চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর থানার বীনি চক। সাত দিন আগে ওই ব্যক্তি তার বোনজামাই সন্তোষ কর্মকারের সাথে ডাক্তার দেখানোর নামে মালদায় হিলি বর্ডার দিয়ে এসেছিলেন। এদিকে বৃহস্পতিবার হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়।। মালদার মঙ্গল বাড়ির খইহাট্টা এলাকার বাসিন্দ া মিলন কর্মকার বাড়িতে তারা ঘুরতে এসেছিল। পরিবারের সদস্যরা মৃতদেহ বাংলাদেশ নিয়ে না যাওয়ার ফলে চরম সমস্যায় পড়েছেন তারা। তাদের আবেদন সরকার বা জেলা প্রশাসন যাতে তাদের মৃতদেহ বাংলাদেশে নিয়ে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হোক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

six + four =