কথায় আছে ‘জলের অপর নাম জীবন’কিন্তু দীর্ঘ অর্ধ শতাব্দী থেকে একফোঁটা পরিশ্রুত পানীয় জলের জন্য বঞ্চিত রয়েছে গোটা একটা আদিবাসী সম্প্রদায়।আদিবাসী পরিবার বলেই কি তারা বঞ্চিত,নাকি গরীব অসহায় বলে কেউ তাদেরকে গুরুত্ব দিচ্ছে না? নানান প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে তাদের মনে। গ্ৰামে পানীয় জল সরবরাহে পাইপলাইন পাতা হয়েছে। রাস্তার ধারে বসানো হয়েছে ট্যাপকল। কিন্তু কাজ শেষের কয়েক মাস পরও জল মিলছে না।এতে ক্ষোভে ফুঁসছে মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুর-১ নম্বর ব্লকের হরিশ্চন্দ্রপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের ধুমসা ডাঙ্গি গ্রামের দুই শতাধিক আদিবাসী পরিবার।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ,গ্রামে সরকারি ভাবে পরিশ্রুত পানীয় জলের জন্য পাইপ লাইন বসানো হলেও হাত গুটিয়ে নিয়েছে জল সরবরাহকারী সংস্থা।জল দেওয়ার কোনও উদ্যোগ নিচ্ছে না।এদিকে পরিশ্রুত পানীয় জলের সংকট দেখা দিয়েছে গ্ৰামে।এলাকার বাসিন্দাদের অনেকেই আজও ভরসা করেন হাতেগোনা কয়েকটি অগভীর নলকূপের ওপর।প্রতিদিন জল আনতে বাড়তি পরিশ্রম করতে হয় মহিলাদের।এলাকা ঘুরে দেখা গিয়েছে, দুই শতাধিক আদিবাসী পরিবারের জন্য রয়েছে মাত্র হাতে গোনা কয়েকটি অগভীর নলকূপ।সেই সব অগভীর নলকূপের আর্সেনিক যুক্ত জল পান করে পেটের নানান রোগে ভুগছে গ্রামবাসীরা।স্থানীয় নেতা ও প্রশাসনকে একাধিকবার জানিয়েও হয়নি কোন কাজ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

eleven − 1 =