সোমবার বিধানসভার ১৬৯ ধারা মোতাবেক ‘নিন্দা প্রস্তাব’ পেশ করেন রাজ্যের শাসকদলের দুই বিধায়ক নির্মল ঘোষ এবং তাপস রায়।প্রস্তাবের পক্ষে ভোট ১৮৯ জন বিধায়কের,বিপক্ষে ভোট পড়ল ৬৪ জন বিধায়কের।প্রস্তাবে বলা হয়েছিল,বিভিন্ন কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা বিগত কয়েক বছর ধরে কিছু বিষয়ে তদন্ত প্রক্রিয়া চালাচ্ছে। এদিন এই প্রস্তাব ঘিরে ভোটাভুটিতে রাজ্য বিধানসভায় যে ছবি দেখা গিয়েছে, তা তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।সরকার ও বিরোধী, দুপক্ষের বিধায়করাই আজ বিধানসভায় এসেছিলেন। বিশেষত, সরকার পক্ষের মন্ত্রী-বিধায়কদের আসতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল বলে খবর।তবে মূল যে দুটি দিক নজর কাড়ার মতো তা অন্য।এক,এ দিন বিরোধীপক্ষ বিধানসভা থেকে ওয়াক আউট করেননি।মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের বক্তৃতা তাঁরা শুনেছেন। কিছুটা হই-হট্টগোল করলেও একে অন্যকে বক্তব্য পেশ করার সুযোগ দিয়েছেন তাঁরা।এই ছবি সাম্প্রতিক অতীতে দেখা যায়নি।সরকারি তরফে বক্তব্য রাখার সময় বিরোধীদের তরফে হট্টগোল করা হলেও তা কখনও এমন পর্যায়ে যায়নি যাতে বক্তা কথা শেষ না করতে পারেন।অন্য দিকে, বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী যখন কথা বলতে শুরু করেন, তখন সরকারি বেঞ্চের বিধায়করাও নিজেদের যথেষ্ট সংযত রাখেন।এ বিষয়ে শুভেন্দু অধিকারী বলেন, “যুক্তি ও নথি-সহ নিন্দা প্রস্তাবের বিরোধীতা করেছিলাম।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

3 + 3 =