যদিও বিশ্ব ১৪ ফেব্রুয়ারী ভ্যালেন্টাইন্স ডে হিসেবে উদযাপন করছে, কিন্তু আজকে ভারতের জন্য ‘কালো দিন’ হিসাবে পরিচিত পুলওয়ামা হামলার কারণে। ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর উপরে হওয়া সবচেয়ে ভয়ঙ্কর হামলা এটি, এই হামলায় ৪০ জন CRPF সাহসী ভারত মায়ের সন্তান শহীদ হয়েছিলো।

১৪ই ফেব্রুয়ারী, ২০১৯-এ পুলওয়ামা হামলা হয়েছিলো, আজ সন্ত্রাসী হামলার চতুর্থ বার্ষিকী। আজ থেকে চার বছর আগে এই দিনে, ৪০ ভারত মায়ের বীর সন্তান হারানোর খবর টিভি পর্দায় ছড়িয়ে পড়ার সাথে সাথে সারা দেশের স্তব্ধ হয়ে পড়েছিলো।

দুর্ভাগ্যজনক ছিলো এই ১৪ই ফেব্রুয়ারি ‘কালো দিনটি’, জম্মু ও কাশ্মীরের পুলওয়ামা শহরে সন্ত্রাসী হামলায় চল্লিশ জন সিআরপিএফ জওয়ান শহীদ হয়েছিলেন,ভারত মায়ের সন্তান দের উপর এই হামলার পেছনে ছিলো পাকিস্তান-ভিত্তিক সন্ত্রাসী সংগঠন জইশ-ই-মোহাম্মদ এর হাত।

১৪ই ফেব্রুয়ারি ২০১৯ যখন ঘটনাটি ঘটে ২৫০০ -রও বেশি সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ৭৮টি গাড়ির একটি কনভয়ে জম্মু থেকে শ্রীনগর, জাতীয় সড়ক ৪৪ এর মধ্য দিয়ে যাচ্ছিল, যেখানে এই হামলা হয়েছিল।
বিকেল ঠিক ৩:১৫ নাগাদ বিস্ফোরক বহনকারী একটি গাড়ি একাধিক সিআরপিএফ এজেন্ট বহনকারী গাড়িতে ধাক্কা দেয়, যার ফলে একটি মারাত্মক বিস্ফোরণ ঘটে। হামলায় ঘটনাস্থলেই ৪০ জন সিআরপিএফ জওয়ান নিহত হন এবং আরও কয়েকজন আহত হন। হামলার পরপরই, জইশ-ই-মোহাম্মদ হামলার দায় স্বীকার করে, আততায়ী আদিল আহমেদ দার নামে ২২ বছর বয়সী ব্যক্তির একটি ভিডিও পোস্ট করে।

ভারতের নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর মারাত্মক হামলার মাত্র কয়েকদিন পর, দেশের প্রতিরক্ষা বাহিনী সন্ত্রাসবিরোধী বিমান হামলা চালায়। ২৬শে ফেব্রুয়ারী, ২০১৯-এ, ভারতীয় বিমানবাহিনীর বেশ কয়েকটি জেট বালাকোটে জইশের সন্ত্রাসী শিবিরগুলিতে বোমাবর্ষণ করে, প্রায় ৫০০ জন সন্ত্রাসবাদীকে হত্যা করে ভারতীয় সেনাবাহিনী।

বালাকোটে বিমান হামলার পরে, পাকিস্তান বিমান বাহিনী জম্মু ও কাশ্মীরে ভারতীয় সামরিক স্থাপনায় হামলা চালিয়ে প্রতিশোধ নেওয়ার চেষ্টা করেছিল, একটি প্রচেষ্টা যা IAF দ্বারা ব্যর্থ হয়েছিলো। সংঘাতের সময়, ভারতের উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান পাকিস্তানি বাহিনীর হাতে গুলিবিদ্ধ হয়ে বন্দী হন।

উইং কমান্ডার অভিনন্দনকে পরে পাকিস্তান মুক্তি দেয় এবং বীর চক্র দ্বারা ভূষিত হয়, যা তৃতীয় সর্বোচ্চ যুদ্ধকালীন বীরত্ব পদক।

যদিও পুলওয়ামা হামলার ভয়াবহতা এখন ৪ বছর হয়ে গেছে, কিন্তু ১৪ই ফেব্রুয়ারি দিনটিকে এখনও ভারতীয়দের জন্য একটি ‘কালো দিন’ হিসাবে পালন করা হয়, সেই আক্রমণে প্রাণ হারানো সাহসী CRPF কর্মীদের স্মরণে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

1 + 19 =