খিদিরপুর ৭৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিল রাম পেয়ারে রাম। তাঁর ছেলে দুর্ঘটনাগ্রস্ত গাড়িটিতে ছিলেন বলে জানা গিয়েছে। ওই গাড়ির উপরই উল্টে পড়ে সারবোঝাই গাড়ি। মৃতের নাম রামকিঙ্কর। বয়স হয়েছিল ৩৮ বছর।

শনিবার রাত ৯টা নাগাদ ঘটনাটি খিদিরপুরের বাবুবাজারের এলাকায় ঘটেছে। কাটাপুকুরের দিক থেকে বাবুবাজার মুখী যে রাস্তার উপরই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। যে এলাকায় দুর্ঘটনা ঘটেছে, তা কলকাতা বন্দরের এলাকার মধ্যে পড়ে। শনিবার বিকেলে মুষলধারে বৃষ্টির পর রাত ১০টা পর্যন্ত সেখানে হাঁটু পর্যন্ত জল জমে থাকতে দেখা গিয়েছে। এ ছাড়াও খানাখন্দে ভরা রাস্তাটি। তাতেই নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে লরিটি উল্টে যায় কি না, তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। এছাড়াও লরিটিতে নির্ধারিত ওজনের চেয়ে বেশি সার বোঝাই ছিল কি না, উঠছে সেই প্রশ্নও দুর্ঘটনার পর ঘটনাস্থলে মানুষ গিয়ে দেখতে পায়, গাড়ির জানলা দিয়ে একটি হাত বাইরে ঝুলতে। ভিতরে আটকে থাকা সকলকে উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। তবে কারও বেঁচে থাকার সম্ভাবনা নেই বলেই আশঙ্কা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, বিকট শব্দে সারবোঝাই লরিটি গাড়ির উপর উল্টে পড়ে যায়। তার নিচে চাপা পড়ে পৃষ্ট হয়ে যায় গাড়িটি। সঙ্গে সঙ্গে সকলে ছুটে যান। খবর দেওয়া হয় পুলিশকে। এর পর তড়িঘড়ি দুর্ঘটনাস্থলে ছুটে আসে দমকল, অ্যাম্বুল্যান্স ও বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। লরিটি ওভারলডেড ছিল বলেও অভিযোগ।
রামকিঙ্কর রামের দেহ উদ্ধার করে পুলিশ এসএসকেএম হাসপাতালে পাঠায়। সেখানে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করে। ময়নাতদন্তের জন্য দেহ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়। রাম পিয়ারে রাম সহ পুরো পরিবার উপস্থিত হন। দুর্ঘটনার খবর পাওয়া মাত্রই কলকাতার মেয়র ববি হাকিম হাসপাতালে উপস্থিত হন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

one + 2 =