মুর্শিদাবাদের ইসলামপুর থানার গোয়াস কলোনি গ্রামে বছর ২২ এর সুমন সাহা নামের এক যুবকের ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য এলাকায়। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত্রি সাড়ে আটটা নাগাদ দেখতে পাওয়া যায় একটি বাগানে গাছের মধ্যে ঝুলছিল তার মৃতদেহ।
তৎক্ষণা তিনজন প্রত্যক্ষদর্শী খবর দেয় ছেলেটির বাড়িতে এবং তার বাড়ির লোকেরা গিয়ে দেখে সেই দৃশ্য।
মৃতর বাবা নয়ন সাহা জানান, তার ছেলে আজ অর্থাৎ শুক্রবার কেরল যাওয়ার কথা ছিল, আর সেই জন্য গতকাল বৃহস্পতিবার একটি মোবাইল কিনেছিলো ২০ হাজার টাকা দিয়ে, সন্ধ্যা বেলায় বাজারে ঘুরতেও দেখেছিলেন ছেলেকে, ঠিক তার দুই থেকে তিন ঘন্টা পর তার মৃতদেহ ঝুলন্ত অবস্থায় রয়েছে বলে খবর পান তিনি।
স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, একই গ্রামের এক তরুনীর সঙ্গে ওই যুবকের দীর্ঘদিন ধরে সম্পর্ক ছিল, মেয়েটির পরিবার না মানায় কিছুদিন আগে থানাতে মীমাংসাও করা হয়েছিল, গতকাল তরুণীর সঙ্গে দেখা করার জন্য সন্ধ্যার পর গিয়েছিল ওই যুবক, তার কিছুক্ষণ পরেই খবর পাওয়া যায় ওই যুবক আত্মহত্যা করেছে।
যদিও ছেলেটির বাবা সহ তার পরিবারের দাবি, তার ছেলেকে মেয়েটির পরিবারের লোকেরা খুন করে ঝুলিয়ে দিয়েছে দেহ এবং তারাই পরে খবর দিয়েছে।
গতকাল রাতেই ইসলামপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে পরিবার।অভিযুক্ত তরুণীকে গ্রেফতার করেছে ইসলামপুর থানার পুলিশ এবং বাকি তিন যুবক সহ তরুনীর বাবা-মা পলাতক রয়েছে।
ইতিমধ্যে মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য লালবাগ মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছে।
সমস্ত ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ইসলামপুর থানার পুলিশ প্রশাসন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

9 + eight =