চন্দ্রযান ৩ -র গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় নাম জুড়লো বীরভূমের বিলাসপুর গ্রামের বাসিন্দা মুশারফ হোসেন। গত ১৭ বছর ধরে ইসরোয় একজন সিনিয়ার সায়েন্টিস্ট পদে তিনি রয়েছেন। চন্দ্রযান ৩ মিশনের প্রজেক্টে বিক্রমের তিনটে পেলোড আছে তার মধ্যে একটি হল রম্ভা-এলপি, সেই রম্ভা এলপির সায়েন্স ডিরেক্টর হিসাবে ছিলেন মুশারফ হোসেন। রম্ভা এলপির কাজ হল চাঁদের আয়ন ইলেক্ট্রন টেমপারেচার ও ডেনসিটি। এটা খুবই গুরত্বপূর্ণ চাঁদের আবহাওয়া মাপার ক্ষেত্রে। চাঁদের ডেটা আসবে যে পাইপলাইন দিয়ে সেটা একটা সফটওয়ার যেটা তৈরী করেছে মুশারফ হোসেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

eighteen + two =