মঙ্গলবার টানা ১০ ঘণ্টা সিজিও কমপ্লেক্সে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় দুর্গাপুরের ব্যবসায়ী সঞ্জয় সিংকে। অবশেষে গভীর রাতে তাঁকে গ্রেপ্তার করে সিবিআই। এই মামলায় এখনও পর্যন্ত ধৃত ৩।গত পুরভোটে হালিশহর পুরসভার চেয়ারম্যান হন রাজু সাহানি। তার আগে থেকেই সিবিআই চিটফান্ড মামলায় তাঁর উপর নজরদারি চালাচ্ছিল। বর্ধমান সন্মার্গ ওয়েলফেয়ার অর্গানাইজেশন নামে ওই চিটফান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম অভিযোগ দায়ের হয় ২০১৪ সালে।আর্থিক তছরূপের ঘটনায় ২০১৮ সালে সিবিআই তদন্ত শুরু করে। চার্জশিটও জমা দেয় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। প্রসঙ্গত,গত বছর ১২ ডিসেম্বর তৃণমূল নেতা তথা বর্ধমান পুরসভার পুরপ্রশাসক প্রণব চট্টোপাধ্যায় গ্রেপ্তারও হন। যদিও বর্তমানে তিনি জামিনে মুক্ত। সেই মামলাতেই কিছুদিন আগে সিবিআইয়ের জালে ধরা পড়েন রাজু। নজরে ছিল রাজুর ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ী সঞ্জয় সিং।

বুধবার সকালে হাওড়া থেকে ট্রেনে আসানসোল নিয়ে যাওয়া হচ্ছে ধৃত ব্যবসায়ীকে। আজই তোলা হবে আদালতে।প্রসঙ্গত, এর আগে একবার গ্রেপ্তার করা হয়েছিল সঞ্জয় সিংকে। রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের সময়ে রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর নাম করে পান্ডবেশ্বরের বিধায়ক নরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তীকে এনডিএয়ের প্রার্থী দ্রৌপদী মূর্মুকে ভোট দেওয়ার ‘আবেদন’ করেছিলেন তিনি।বিধায়ককে আর্থিক প্রলোভন ও হুমকি দেওয়ার অভিযোগও উঠেছিল তাঁর বিরুদ্ধে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেপ্তার করা হয় তাঁকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

8 + 4 =