মালদহের মালতীপুরের অনুপ নগরের বাসিন্দা অরুনা মন্ডল। স্বামী কয়েক বছর আগেই গত হন। এক পুত্র সন্তানকে নিয়েই তার সংসার। সম্প্রতি বছর খানেক আগে চোখের দৃষ্টি হারান অরুনা দেবী। নুন আনতে পান্তা ফুরনোর সংসার। একমাত্র ছেলের উপার্জনে সংসার চলে তার। এই অবস্থায় বিপুল পরিমাণ অর্থ দিয়ে কিভাবে চোখের চিকিৎসা করাবেন তা বুঝে উঠতে পারছিলেন না সত্তর ঊর্ধ্ব বৃদ্ধা বিধবা। শেষমেষ সন্ধান পান বাড়ির পাশে সরকারি হাসপাতালে বিনামূল্যে হচ্ছে চোখের চিকিৎসা। তৎক্ষণাত-ই সরকারি হাসপাতালে ছুটে গেলেন তিনি হাসপাতালের বহির্বিভাগে ২ টাকা দিয়ে টিকিট কেটে চিকিৎসকদের পরামর্শে শুরু হয় চোখের অস্ত্রপাচার। গত মাসের ২৮ তারিখে বৃদ্ধার দুই চোখে অত্যাধুনিক ’ফেকো সার্জারি’ করে সফল হন হাসপাতালে চিকিৎসকরা। ধীরে ধীরে দৃষ্টিশক্তি ফিরে পান অরুনা মন্ডল। অস্ত্রপাচারের পর এখন দৃষ্টি শক্তি ফিরে পেয়েছেন বৃদ্ধা। দু-হাত তুলে তিনি কর্তব্যরত চিকিৎসককে আশীর্বাদ করছেন পাশাপাশি আর্থিক দিক দিয়ে পিছিয়ে পড়া মানুষের জন্য চোখের আলো প্রকল্প চালু করার জন্য রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে তিনি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

চাঁচল সুপার স্পেশাল্যাটি হাসপাতালের সুপার কুমারেষ ঘোষ বলেন, অন্ধত্ব প্রতিরোধে গরীব মানুষদের জন্য রাজ্য সরকারের চোখের আলো প্রকল্প চালু করেছেন।ওই প্রকল্পের মাধ্যমে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে চোখের যাবতীয় চিকিৎসা করা হয়।ওই প্রকল্পের মাধ্যমে বৃদ্ধা অরুনা মণ্ডলের চোখে ছানি অপারেশন করানো হয় ও বসানো হয় ফেকো লেন্স।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

4 × one =