মালদহের রতুয়া দুই নম্বর ব্লকের ছাত্র পরিষদের সহ-সভাপতিকে মারধর হাসুয়া দিয়ে মাথা ফাটানোর অভিযোগ কংগ্রেসের দিকে।আহত তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সহ-সভাপতি ও তার ভাই চিকিৎসাধীন মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। ঘটনায় অভিযুক্ত কংগ্রেস দুষ্কৃতীদের নামে পুকুরিয়া থানায় অভিযোগ করা হলে পুলিশ বিষয়টি তদন্ত শুরু করেছে।। ঘটনাটি ঘটেছে পুকুরিয়া থানার গোকুলপুর এলাকায়। আক্রান্ত তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সহ-সভাপতির নাম মাইমুর হক। তিনি জানান এলাকার অভিযুক্ত কংগ্রেস কর্মী এস কে গান্নু, নিবাবুল, কাজেম ,মন্টু বৃহস্পতিবার রাতে দলবল নিয়ে এসে তাদের বাড়িতে চড়া হয় তাদেরকে মারধর করে হাসুয়া দেতা তার মাথা ফাটানো হয় তার ভাইকেও মাথা পাঠানো হয়। তার মাকেও মারধর করে। দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় কংগ্রেস তেমন কোন মানুষের জনসমর্থন পাচ্ছিল না গত পঞ্চায়েত নির্বাচন থেকেই তাদেরকে জোর দেওয়া হচ্ছিল কংগ্রেসের যোগদান করার জন্য কিন্তু তারা তাদের এই প্রস্তাবে রাজি হয়নি। গত ২৭শে আগস্ট তৃণমূলের ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে এলাকা থেকে ১০০ জন যুবককে তার নেতৃত্বে কলকাতায় নিয়ে গিয়েছিল এবং এটাতে তাদের কংগ্রেস কর্মীদের আরো আক্রোশ তার উপর হয়। কলকাতা থেকে বাড়িতে ফিরে আসার পরই কংগ্রেসের কর্মীরা তাদের বাড়িতে ঢুকে হামলা চালায়। যদিও কংগ্রেসের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ থেকে সম্পন্ন ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন মালদা জেলা কংগ্রেসের কার্যকরী সহ-সভাপতি কালী সাধন রায় তিনি জানান দুর্নীতি কাঠ মানিতে জড়িয়ে পড়ছে তৃণমূল কংগ্রেস আর এই কাঠ মানির ভাগ না আমাকে কেন্দ্র করে নিজেদের মধ্যেই অন্তর কলহ দেখা দিচ্ছে এবং তার জন্যই একে অপরের মধ্যে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ছে এলাকায় কংগ্রেসের বরাবরই সত্য ঘাঁটি কংগ্রেস দল কাউকে জোর করে তাদের দলে আসার জন্য বলে না এটা সম্পূর্ণই একটা নাটক। গোটা ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছে পুকুরিয়া থানার পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

17 − 12 =