দিল্লি হাইকোর্টের নির্দেশে ইডির হেফাজতের জন্য সায়গল হোসেনকে নিয়ে দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা হল আসানসোল দুর্গাপুর পুলিশের সাত পুলিশ কর্মী। শিয়ালদহ জলন্ধর এক্সপ্রেসে ট্রেনে তাকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

শুক্রবার অনুব্রতর প্রাক্তন দেহরক্ষী সায়গল হোসেনের একটি আবেদন খারিজ করে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। সেই আর্জিতে সায়গল আবেদন করেছিলেন, দিল্লি নয়, কলকাতাতেই তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হোক। ফলে এবার আর সায়গলকে দিল্লিতে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করায় বাধা রইল না ইডির।

এই নির্দেশের ফলে স্বাভবতই চাপ বাড়ল অনুব্রত মণ্ডলের উপরে। কারণ গোরুপাচার কাণ্ডের প্রচুর তথ্য সায়গল হোসেনের কাছে রয়েছে বলে মনে করছে কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা। বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতির দেহরক্ষী সায়গল হোসেন যেমন তাঁর দেহরক্ষী ছিল তেমনই তাঁর অনেককিছু কর্মকাণ্ডের সঙ্গেও জড়িয়ে ছিল। ফলে তার কাছে অনুব্রত ও গোরুপাচার সংক্রান্ত বিষয়ে প্রচুর তথ্য রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। তাই সায়গলকে জেরা করার জন্য আসানসোল আদালত ও কলকাতা হাইকোর্টে আবেদন করা হয়। দুটি ক্ষেত্রেই যে প্রশ্নটা ওঠে তা হল এক্তিয়ার। কারণ ওই দুই আদালতের কারও এক্তিয়ার নেই সায়গালকে দিল্লিতে নিয়ে গিয়ে জোরার অনুমতি দেওয়ার। এমনই কথা উঠে এসেছিল। এরপরই ইডি দিল্লির রাউজ অ্যাভিনিউয়ের আদালতে এনিয়ে আবেদন করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

one × two =