চিকিৎসাধীন অবস্থায় মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যু হয়েছে। ডেঙ্গি আক্রান্ত রোগীর মৃত্যু পর থেকেই তৎপরতা শুরু স্বাস্থ্য দপ্তরের। গত কয়েকদিন ধরে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বৃদ্ধি পাচ্ছে রোগীর সংখ্যা।বর্তমানে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বিভিন্ন ওয়ার্ডে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী ভর্তি রয়েছে প্রায় ২০ জন। শুধুমাত্র শহরাঞ্চলে বর্তমানে ডেঙ্গি আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা গ্রামীণ এলাকাতেও ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে যা নিয়ে উদ্বিগ্ন জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর।

মালদা জেলার স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, গত কয়েক দিনে মালদহের কালিয়াচক ১ নম্বর ব্লকের ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা।স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফ থেকে ইতিমধ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।শুধুমাত্র কালিয়াচক ব্লক নয় পাশাপাশি যারা অন্যান্য ব্লক গুলিতেও ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী হদিস মিলেছে।জেলা স্বাস্থ্য সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে জেলায় ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১০৫ জন। চলতি বছর জানুয়ারি মাস থেকে এখন পর্যন্ত জেলায় ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৬৮৬ জন।

জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের কর্তারা জানান ,প্রতিবছর অক্টোবর-নভেম্বর মাসে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পায়।প্রতিবছরের মতো এবছরও আক্রান্তের সংখ্যা ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পাচ্ছে।নভেম্বর মাসের পর থেকে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা কমবে। গোটা রাজ্য জুড়েই ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধির পাশাপাশি মালদা জেলাতে বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে পরিস্থিতির নিয়ন্ত্রণ আছে বলে জানান মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কর্তারা।বেঙ্গল নিয়ন্ত্রণ ও সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফ থেকে জেলার প্রতিটি প্রান্তে বিশেষ সচেতনতা শিবির ও বিভিন্ন কার্যকলাপ শুরু করা হয়েছে স্বাস্থ্য কর্মীদের দিয়ে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

5 × 3 =