এদিন চন্দননগরে জ্যোতিরিন্দ্র সভা গৃহে জেলা প্রশাসন ও বিদ্যুৎ দপ্তরের আধিকারীকদের নিয়ে বৈঠক করেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস।মিটিং এ উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় বিধায়ক তথা মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন, ডব্লিউবিএসইডিসিএল-র চেয়ারম্যান শান্তনু বসু সহ অন্যান্য আধিকারিকরা।

মিটিং শেষে বিদ্যুৎ মন্ত্রী বলেন,ভূগর্ভস্থ কেবল বসানোর কাজ শুরু হবে ডিসেম্বর-জানুয়ারি মাসে।কোথায় তার কোথায় বিদ্যুৎ পোস্ট সরানো থাকলে সেগুলো করা হয়েছে।গত দু’বছর করোনার জন্য শোভাযাত্রা করা যায়নি।এবার শোভাযাত্রায় এবং দিনের বিসর্জনের জন্য সকাল দশটা থেকে সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন থাকবে চন্দনগর।বন্ধ থাকবে বিদ্যুৎ পরিষেবা।তবে জলের পাম্প চালু রাখা হবে।থাকবে জেনারেটেরের ব্যবস্থা।যে কাজের জন্য ১০৫ কোটি টাকা অনুমোদন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। বিদ্যুৎ মন্ত্রী এদিন ঘোষণা করেন ডিসেম্বরের শেষ নয়ত জানুয়ারির শুরুতে এই কাজ শুরু হবে।আগামী বছর আর বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন থাকবে না চন্দননগর।জগদ্ধাত্রী পুজোর চারদিন চন্দননগর স্বাগত লজে স্পেশাল ক্যাম্প করা হবে যেখানে একশ জন বিদ্যুৎ দপ্তরের আধিকারিক থাকবেন নজরদারি করার জন্য।

বিদ্যুৎ সক্রান্ত কোনো সমস্যা দেখা দিলে সাধারন মানুষ,চন্দননগর বাসী, দর্শনার্থীরা যাতে বিদ্যুৎ দপ্তরে খবর দিতে পারেন বা কোনো সাহায্যের জন্য আবেদন করতে পারেন সেই কারনে টোল ফ্রি নম্বর ১৯১২১ এবং কন্ট্রোল রুম নম্বর ৮৯০০৭৯৭৪১৭ চন্দননগরের সর্বত্র ডিসপ্লে করা থাকবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

16 − 3 =