প্রশাসনের নির্দেশ উপেক্ষা করে কার্যত মালদা শহরে বেশ কিছু নামজাদা বিরিয়ানির এবং রেস্তোরা চলছিল রমরমিয়ে। পাশাপাশি আরো বেশ কিছু কয়েকটি মিষ্টির দোকানে চলছিল একই রকম কায়দায়। জেলা খাদ্য সুরক্ষা দপ্তর থেকেও পাঠানো হয়েছিল শোকজ নোটিশ। কিন্তু কোন কিছুরই সদুত্তর দেওয়ার প্রয়োজন বোধ করেনি সেইসব নামজাদা বিরিয়ানি, মিষ্টি এবং রেস্তোরাঁর দোকানগুলি। অবশেষে শনিবার ময়দানে নেমে বিভিন্ন সরকারি নিয়ম ভঙ্গ করার অভিযোগে মালদা শহরের গৌড়রোড এবং কে.জে. সান্যাল রোডের নামিদামি বিরিয়ানি রেস্তোরাঁ সহ কয়েকটি খাবার, মিষ্টি এবং হোটেল সিল করে দিল প্রশাসন।
এদিকে, পুজোর মরশুমের মুখে শহরের নামজাদা এসব রেস্তোরা, বিরিয়ানির দোকান বন্ধ হতেই ব্যাপক চর্চা শুরু হয়েছে মালদা শহর জুড়ে।
অন্যদিকে যদিও সাধারণ মানুষের বক্তব্য, জেলা খাদ্য সুরক্ষা দপ্তর ভালো উদ্যোগ নিয়েছে। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে যদি কোথাও খাবার তৈরি করা হয় তাতে তো সাধারণ মানুষ অসুস্থ হবে। মূলত শিশুরাও এই ধরনের মুখরোচক খাবার খেয়ে থাকে। তাই প্রশাসন যে উদ্যোগ নিয়েছে তা সঠিক। এরকম দোকানীদের বিরুদ্ধে অবশ্যই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া উচিত, যেটা জেলা প্রশাসন করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

nine + 12 =