ব্যাঙ্গালোরে নার্সিং প্রশিক্ষণ দেওয়ার নামে ছাত্রছাত্রীদের কাছ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণা চক্রের হদিস মিলল মালদহের চাঁচল সদরে।বুধবার দুপুরে ঘটনা কে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে মালদের চাঁচলের ডিডব্লুডি অফিসের বিপরীতে জাতীয় সড়কের ধারে। টাকা ফেরতের দাবি তুলে সংস্থার কর্নধারকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখান ছাত্র ছাত্রী সহ অভিভাবকেরা।খবর পেয়ে চাঁচল থানার পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়।ওই কর্ণধারকে পুলিশ আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে।যদিও এখনও পর্যন্ত থানায় লিখিত অভিযোগ জমা পড়েনি।পুলিশ জানিয়েছে, অভিযোগ পড়লেই পরবর্তী পদক্ষেপ করা হবে।

উল্লেখ্য,বছর কয়েক ধরে নার্সিং প্রশিক্ষণ নেওয়ার জন্য ভিনরাজ্যে পাড়ি দিচ্ছে চাঁচল মহকুমার হাজার হাজার যুবক যুবতী।নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার লক্ষ্যে চাঁচলের একাধিক যুবক যুবতি উদ্যোগী হয় ওই প্রশিক্ষণ নিতে।তাদের মধ্যে অনেক দুস্থ ও মেধা। তারা চাঁচলের একটি বেসরকারি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের শাখায় যোগাযোগ করেন।চাঁচলের পিডব্লুডি অফিসের বিপরীতে অবস্থিত অক্সফোর্ড ইন্সটিউট অফ কম্পিউটার ইডুকেশন এন্ড টেকনোলজি সেন্টারে যোগাযোগ করেন।প্রায় ২২ জন ছাত্রছাত্রী ব্যাঙ্গালোরে নার্সিং প্রশিক্ষণের জন্য ভর্তি হন।কেউ ৬০ হাজার আবার কেউ ৭০ হাজার টাকা দেন চাঁচলের অক্সফোর্ড সংস্থার কর্ণধার কাঞ্চন গুপ্তাকে বলে দাবি।তারপরে ছাত্রছাত্রীরা বেঙ্গালোরে গেলে সেখানে কলেজে দেখতে পায়নি।
সেখানে কোনো এক হোটেলে আবাসিকের নাম করে রাখা হলেও কোনো প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়নি।অথচ সেখানে ছাত্রছাত্রীদেরকে হেনস্থা করা হয় বলে অভিযোগ।কোনোরকমে তারা পালিয়ে বাড়ি ফিরে আসে।কোনো পরীক্ষাও নেওয়া হয়নি।
ওই শাখা সূত্রে জানা গিয়েছে,প্রায় তিন লক্ষ টাকা দিয়ে তিনবছরের জন্য নার্সিং এর কোর্স করানো হবে।সেই নিয়ম মেনেই ছাত্রছাত্রীরা ভর্তি হন।তবে আসল ডকুমেন্ট গুলিও জমা রেখেছেন ওই সংস্থা।
ওই সংস্থার কর্ণধার কাঞ্চন গুপ্তার দাবি,আমিও প্রতারণার শিকার হয়েছি।ব্যাঙ্গালোরের ওই কর্ণধার আমার সাথে প্রতারণা চক্র খেলেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

5 × 4 =