এদিন রামপুরহাট এসডিপিও ধীমান মিত্র রামপুরহাট থানায় সাংবাদিক বৈঠক করে জানান, গত ২৭ আগস্ট সাতটি বাইক সহ শিপন শেখ নামে এক ধৃত ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে রামপুরহাট থানার পুলিশ। শিপন শেখ কে রিমান্ডে নিয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে আরো একজনকে গ্রেফতার করলো রামপুরহাট থানা থানার পুলিশ। জানা গিয়েছে, তার নাম কিরণ শেখ, তার বাড়ি বীরভূমের পাইকর থানার লম্বা পাড়া গ্রামে, তার কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে আরেকটি বাইক। এই নিয়ে চুরি যাওয়া মোট আটটি বাইক উদ্ধার করল রামপুরহাট থানার পুলিশ। কিরণ শেখের কাছ থেকে উদ্ধার করা বাইকটি মুর্শিদাবাদের সুতি থানার এক ব্যক্তির। তারা বিভিন্ন জায়গা থেকে বাইক চুরি করে মাড়গ্রামের শিপন শেখ এর কাছে জমা করত। তারপর বাইক গুলি নাম্বার প্লেট চেঞ্জ করে এবং গাড়ির রং পাল্টে বিভিন্ন গ্রাহককে বিক্রি করে দিত। এই বাইক গুলি উদ্ধার হওয়ার পর চেচিস নাম্বার এবং ইঞ্জিন নাম্বার অনুয়ায়ী গাড়ি মালিকের ঠিকানা খোঁজার চেষ্টা করছে রামপুরহাট থানার পুলিশ। এরা আগে আরো কত বাইক এইভাবে চুরি করে বিক্রি করেছে এবং এদের সঙ্গে আরো কে কে জড়িত আছে পুলিশ তদন্ত করেছে। আজ তাদের রামপুরহাট আদালতে তোলা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

14 + seven =