পুলিশ সূত্রে খবর আগস্ট মাসে এক ব্যক্তি বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানায় এসে অভিযোগ করেন যে তিনি পার্সোনাল লোনের জন্যে একটি ফোন পান। ২লক্ষ টাকার পার্সোনাল লোন নামী ব্যাংক থেকে করিয়ে দেওয়া হবে বলে তাকে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়। তিনি রাজি হয়ে পরবর্তী প্রসিডিওর পালন করলে তাকে ফোন মারফত জানানো হয় তার লোন অ্যাপ্রুভ হয়ে গেছে। তবে সেই লোনের টাকা তাকে নিতে গেলে আগে কনসালটেন্সি ফিস হিসাবে ২৫ হাজার ৬৭২ টাকা জমা করতে হবে। তিনি সেটায় রাজি হলে তাকে একটি ব্যাংক একাউন্ট নাম্বার দেওয়া হয়। তিনি সেখানে টাকা জমা করলেও তার লোনের টাকা আসে না। তিনি প্রতারণার স্বীকার হয়েছেন বুঝতে পেরে বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার দ্বারস্থ হয়। পুলিশ তদন্ত শুরু করে গতকাল ২৬ বছরে রাহুল নাগকে গ্রেফতার করে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ জানতে পারে রাহুল একটি ভুয়ো কল সেন্টার চালু করে এই প্রতারনা চক্র চালাচ্ছিলেন। সেই সূত্র ধরে গতকাল রাতে নিউটাউনের গ্যালেরিয়া বিল্ডিংয়ে একটি ভুয়ো কল সেন্টারে হানা দেয় পুলিশ। সেখান থেকে রাহুল নাগ এবং ৩ মহিলা সহ মোট ১০জনকে গ্রেফতার করে বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিশ। এরা মূলত আদিত্য বিড়লা, কোটাক মাহিন্দ্রা, বাজাজ ফাইন্যান্সের মত বড় সংস্থার নাম ব্যবহার করে লোনের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ফোন করতো বলে পুলিশ সূত্রে খবর। এই অফিস থেকে বেশকিছু কম্পিউটার, হার্ডডিস্ক সহ একাধিক নথি উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ অভিযুক্তদের বিধাননগর মহকুমা আদালতে তোলা হবে পুলিশ তাদের নিজেদের হেফাজতে নেওয়ার আবেদন জানাবে বলে পুলিশ সূত্রে খবর। এই চক্রের সঙ্গে আর কাদের যোগ রয়েছে সেটা তদন্ত করে দেখছে বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

4 + 15 =