ভুয়ো ইডি অফিসারের পরিচয় দিয়ে বিয়ে করার ফন্দি। অভিযুক্তের নাম প্রদীপ সাহা, সোনারপুরের বাসিন্দা। অভিযোগ বিরাটির বাসিন্দা একটি মেয়ের সাথে তার সোশ্যাল মিডিয়াতে যোগাযোগ হয়। রপর তাদের মধ্যে পরিচিতি বাড়ে এবং অভিযুক্ত প্রদীপ সাহা নিজেকে ইডি অফিসার পরিচয় দিয়ে মেয়েটিকে বিয়ে করতে চায়। এমনকি মেয়েটির সাথে বিয়ের কার্ড পর্যন্ত ছাপা হয়ে গেছে বলে জানা গিয়েছে। এরপর মেয়েটির পরিবারের লোকেদের সন্দেহ হওয়ায় তারা ইডি দপ্তরে এসে প্রদীপ সাহার সম্বন্ধে খোঁজ নিলে জানতে পারে, ওই নামে কেউ ইডি অফিসে কাজ করে না। এরপরই এদিন প্রদীপ সাহাকে বেঁধে নিয়ে তারা উপস্থিত হয় ইডির অফিসে। ইডি অফিসের বাইরে অভিযুক্ত প্রদীপ সাহাকে উদুম মারধর করে তারা।

এদিন দুপুরবেলায় হাত বাধা ও গলায় ইডির ভূও আই কার্ড ঝোলানো অবস্থায় এক ব্যক্তিকে সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে বেশ কিছু উত্তেজিত মানুষ। তদের অভিযোগ নিজেকে ইডি অফিসার পরিচয় দিয়ে ওই ব্যক্তি তাদের পরিবারের মেয়ের সাথে বিয়ে করার চেষ্টা করে। এমনকি অভিযুক্ত ব্যক্তি ওই পরিবারের থেকে টাকা নিয়েছে বলেও দাবি করে অভিযোগকারীরা। ইডি অফিসের সামনেই অভিযুক্তকে বেধরক মারধর করে উত্তেজিত জনতা। এরপর ইডি অফিসের সামনে থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় অভিযুক্তকে গাড়িতে করে নিয়ে যায় অভিযোগকারীর পরিবার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

fifteen − 6 =