অর্ধনগ্ন অবস্থায় মাটিতে পরে রয়েছে ধর থেকে আলাদা মাথা। সাতসকালে মহিলার দেহ ঘিরে এলাকায় চাঞ্চল্য। ঘটনাটি ঘটে মালদহের হবিবপুর থানার মঙ্গলপুরা অঞ্চলের নিরইল গ্রামে। ভোরবেলা পার্শ্ববর্তী এলাকার বাসিন্দারা ওই ব্যক্তির বাড়ির সামনে চিৎকার শুনে তাদের বাড়ীতে গিয়ে দেখেন বাড়ির উঠনে মধ্যে পড়ে রয়েছে সাবিত্রী রায় নামে মহিলার ধর থেকে মাথা আলাদা অবস্থায় পরে রয়েছে। পার্শ্ববর্তী এলাকাবাসী জানান হঠাৎ সকাল বেলায় চিৎকার শুনে দেখতে পায় অর্ধনগ্ন অবস্থায় মাথা আলাদা দেহ রয়েছে আলাদা জায়গায়। তবে কি করে ঘটনা ঘটল তা বুঝে উঠতে পারছেন না কেউ। রাতে কোন ঝামেলা বা কোন কিছু এমন কোনো খবর তারা দেখতে পাইনি। এই ঘটনার পর তার স্বামীকে এলাকাবাসী আটকে রেখে খবর দেওয়া হয় হবিবপুর থানায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে হবিবপুর থানার পুলিশ এবং তার স্বামী বাচ্চু টুডু কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এই ঘটনা নিয়ে হবিবপুর থানা পুলিশ তদন্ত শুরু করে।মৃতদেহটি তদন্তের জন্য কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।
পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ঘরের মধ্যে এই ঘটনা ঘটিয়েছে। হবিবপুর থানার অন্তর্গত মঙ্গলপুরা অঞ্চলের নিরইল গ্রামে মৃত্য মহিলার সাবিত্রী রায়ের বাপের বাড়ি। তার স্বামী বাড়ি করদহ এলাকায় স্ত্রীর গোলাকেটে ধর ও মাথা আলাদা করে ফেলেছে সাবিত্রী রায়ের স্বামীর বাড়ি করদহ এলাকায়। বিশ্বকর্মা পূজার সময় এসেছিল এখানে ছিলো তাদের কোন সন্তান নেই। কি কারনে এই ঘটনা ঘটালো তা তদন্ত শুরু করেছেন হবিবপুর থানার পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

5 × two =