উত্তরপাড়া রাজেন্দ্র এভিনিউতে একটি বাড়িতে কয়েকদিন আগে মৃত্যু হয় অবসর প্রাপ্ত সরকারি কর্মচারী গগন বরণ মুখোপাধ্যায়ের।তারপর থেকে নিজেদের স্বেচ্ছা গৃহবন্দী করে নেন বৃদ্ধের স্ত্রী শ্যামলী,ছেলে সৌরভ ও মেয়ে চুমকি মুখোপাধ্যায়।খাওয়া দাওয়া না করে তারাও ক্রমশ মৃত্যুর দিকে ঢলে পরতে থাকেন।আজ স্থানীয় কাউন্সিলর উৎপলাদিত্য চট্টোপাধ্যায় ও পুরসভার চেয়ারম্যান দিলীপ যাদব পুলিশ নিয়ে ওই বাড়িতে যান।বৃদ্ধের আত্মীয় বৈষ্ণব দাস মুখোপাধ্যায় জানান, গত ৪ ঠা ফেব্রুয়ারী শেষ কথা হয়েছিল তাদের সঙ্গে।গগনবাবুর মৃত্যুতে শোকাহত হয় পরিবারের সদস্যরা।তার জন্য এই অবস্থা হতে পারে।উত্তরপাড়া পুরসভার চেয়ারম্যান দিলীপ যাদব জানান,”পরিবারের এক সদস্যের মৃত্যু হয়েছে বেশ কিছুদিন আগে। আর বাকি তিন সদস্য বাড়িতেই ছিলেন দরজা বন্ধ করে।কেউ তাদের এক আত্মীয়কে ফোন করে জানায় মৃত্যুর জন্য অপেক্ষা করছেন তারা।এরপর ওই আত্মীয় স্থানীয় কাউন্সিলরকে ফোন করে বিষয়টি জানান।কাউন্সিলর আমাকে জানাতেই আমি পুলিশকে জানাই। পুলিশ এসে তালা ভেঙে তিনজনকে উদ্ধার করেছে।” তাদের উত্তরপাড়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে চিকিৎসার জন্য।কি কারণে এই ঘটনা সেটা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

18 + 18 =