জি টিভি সারেগামাপা খ্যাত ভারত বিখ্যাত ক্ষুদে শিল্পীর উপস্থিতিতে উত্তরবঙ্গ খ্যাত টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের জমজমাট উদ্বোধন। সাথে মন্ত্রী, বিধায়ক পুলিশকর্তা থেকে শুরু করে একাধিক বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বের উপস্থিতি। প্রথম দিনেই কানায় কানায় পূর্ণ মাঠ। টেনিস ক্রিকেটে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের খ্যাতনামা প্লেয়ারদের খেলা দেখতে দূরদূরান্ত থেকে হাজির ক্রীড়াপ্রেমি দর্শকেরা।ব্যাট হাতে মাঠে খোদ মন্ত্রী।বল হাতে তৃণমূলের জেলা সভাপতি।তবে কী ফের খেলা হবে?ক্রীড়া ক্ষেত্রে পরিকাঠামো উন্নয়নের বার্তা মন্ত্রীর।খ্যাতনামা ক্ষুদে শিল্পীর গানে বাঁধভাঙ্গা উচ্ছ্বাস। সব মিলিয়ে এক বর্ণাঢ্য উদ্বোধনের সাক্ষী থাকলো মালদা জেলার হরিশ্চন্দ্রপুর এলাকা। হরিশ্চন্দ্রপুর ২ নম্বর ব্লকের অন্তর্গত সুলতান নগর গ্রামের সুলতাননগর মাঠে শনিবার থেকে শুরু হয়ে গেল স্থানীয় কেএমএস ক্লাবের পরিচালনায় ১২ তম মালেক ইসলাম মেমোরিয়াল টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট টুর্নামেন্ট। এই টুর্নামেন্ট সমগ্র উত্তরবঙ্গের টেনিস ক্রিকেটে অন্যতম বড় টুর্নামেন্ট। সুলতাননগর কেএমএস ক্লাবের পরিচালনায় এই টুর্নামেন্টের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ক্লাবের সম্পাদক তথা মালদা জেলা তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক বিশিষ্ট ক্রীড়াপ্রেমী বুলবুল খান। উদ্বোধন উপলক্ষে উপস্থিত ছিলেন হরিশ্চন্দ্রপুর বিধানসভার বিধায়ক তথা রাজ্যের প্রতিমন্ত্রী তাজমুল হোসেন, মালদা জেলা তৃণমূলের সভাপতি আব্দুর রহিম বক্সী, মালদা জেলা পরিষদের শিশু নারী ও ত্রাণ কর্মাধ্যক্ষা মর্জিনা খাতুন, হরিশ্চন্দ্রপুর থানার আইসি দেওদূত গজমের সহ এলাকার একাধিক বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ।গ্রামের দুস্থ ব্যক্তিদের মধ্যে কম্বল দান করে শুরু হয় টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। আতশবাজি এবং তাসার তালে উদ্বোধন হয় টুর্নামেন্টের। প্রথম দিনে অংশ গ্রহণকারী দুই দলের খেলোয়াড়দের সঙ্গে পরিচয় পর্ব সেরে নেন অতিথিরা। খেলা শুরুর ঠিক আগে দেখা যায় এক অভূতপূর্ব দৃশ্য। পিচে ব্যাট হাতে এলাকার বিধায়ক তথা রাজ্যের প্রতিমন্ত্রী তাজমুল হোসেন।অপরদিকে বল করছেন মালতিপুর বিধানসভার বিধায়ক তথা মালদা জেলা তৃণমূলের সভাপতি আব্দুর রহিম বক্সী। উইকেট কিপিং করছেন হরিশ্চন্দ্রপুর থানার আইসি দেওদূত গজমের। অতিথিরা প্রতীকী ভাবে খেলা শুরু করার পর মাঠে নামে দুই দল। প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হয় দুর্গাপুর এবং কিশনগঞ্জ। কিন্তু আজকের খেলার মূল আকর্ষণ যাকে ঘিরে খেলা শুরু হওয়ার কিছুক্ষণ পরে সে উপস্থিত হয় মাঠে। জি টিভি সারেগামাপা লিটল চ্যাম্পসের রানার্সআপ মালদা জেলার ভূমিকন্যা সারা বাংলার গর্ব ভারত বিখ্যাত ক্ষুদে সংগীত শিল্পী রাফা ইয়াসমিন। রাফা মাঠে আসতেই ব্যাপক উচ্ছ্বাস দেখা যায় দর্শকদের মধ্যে। জেলার এই বিস্ময়কর প্রতিভাকে সামনে থেকে দেখার জন্য তার সাথে ছবি তোলার জন্য রীতিমতো হুড়হুড়ি পড়ে যায়। তারপর টুর্নামেন্টের উদ্বোধনের দিনকে স্মরণীয় করে তোলে রাফা ইয়াসমিনের কন্ঠে “সেনোরিটা গান”। সারেগামাপা’র অডিশনে যে গান গেয়ে রাফা তাক লাগিয়েছিল।ফের একবার রাফার কন্ঠে সেই গান শুনতে পেয়ে খুশি সকলে।টুর্নামেন্ট কমিটির সূত্রে জানা যায় ৮ দলীয় এই টুর্নামেন্ট এক সপ্তাহ ধরে চলবে। শুধু আজকেই নয় প্রায় প্রত্যেকদিন বিভিন্ন চমক থাকছে। প্রথম সেমিফাইনালের দিন আসছে তৃণমূলের মুখপাত্র জনপ্রিয় যুব নেতা দেবাংশু ভট্টাচার্য। ফাইনালের দিন আসছেন রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী স্নেহাশীষ চক্রবর্তী। টুর্নামেন্টের বিজয়ী দলকে দেওয়া হবে এক লক্ষ এগারো হাজার টাকা আর্থিক পুরস্কার মূল্য এবং একটি আকর্ষণীয় ট্রফি। এছাড়াও থাকছে প্রচুর পুরস্কার। প্রথম দিন খেলা দেখতে মাঠে হাজির ছিল প্রায় ২৫ হাজার দর্শক। টুর্নামেন্টের প্রধান উদ্যোক্তা বুলবুল খান জানান প্রত্যেক বছর আমরা এই খেলা কে আরও বড় করার চেষ্টা করব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

16 + 1 =