কলকাতায় টেট চাকরিপ্রার্থীদের ধর্না মঞ্চে গিয়ে এবার হাজির হলেন হাওড়া শিবপুরের ৩৩ নং ওয়ার্ডের ১১ জন বিজেপি কর্মী সমর্থক।যাদের মধ্যে ছিলেন পেশায় মাংস বিক্রেতা সুদাম গিরি নামে এক যুবক। শুধু হাজির হওয়াই নয়, হাতে রীতিমতো পোস্টার নিয়ে ধর্না মঞ্চে আন্দোলনকারীদের পাশে বসে পড়লেন।সেই পোস্টার বা প্ল্যাকার্ডে লেখা রয়েছে, ‘‘আমরা টেট পাশ প্রশিক্ষিত তবুও আমরা বঞ্চিত’’ এক জন মাংস বিক্রেতার হাতে এই পোস্টার সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। ওই যুবক শুধু মাংস বিক্রেতাই নয়, জানা গিয়েছে, তিনি শিবপুরের ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের এক জন বিজেপি কর্মী। ধর্না মঞ্চে বসে থাকা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ওই যুবকের কী পরিচয়?জানা গেছে ,ওই যুবকের নাম সুদাম গিরি। বছর চল্লিশের ওই যুবকের বাড়ি ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের শরৎ চ্যাটার্জি রোডে। বাড়ির কাছেই কাশিনাথ চ্যাটার্জি লেনে রাস্তার উপর তাঁর একটি মুরগির মাংসের দোকান রয়েছে। মুরগি কেটে মাংস বিক্রি করাই তাঁর পেশা।কিন্তু চাকরিপ্রার্থীদের ধরনা মঞ্চে তিনি পোস্টার হাতে বসেছিলেন কেন?এই প্রশ্নের উত্তরে সুদাম গিরি নামে ওই যুবক জানালেন, তিনি স্থানীয় কয়েকজনের সঙ্গে বিজয়া দশমীর দিন কলকাতায় শিক্ষক হিসেবে চাকরিপ্রার্থীদের ধরনা মঞ্চে তাঁদের মিষ্টি বিতরণ করতে ও শুভেচ্ছা জানাতে গিয়েছিলেন। ওই যুবক নিজেকে বিজেপি কর্মী হিসেবে স্বীকার করলেও সেদিন তিনি দলের তরফে ধরনা মঞ্চে যাননি বলেই জানিয়েছেন।

ওই যুবকের দাবি, তিনি এলাকার বিজেপির কর্মী সমর্থকদের সঙ্গেই সেদিন ধরনা মঞ্চে গিয়েছিলেন।তাঁর কথায়, তাঁরা যখন দশমীর দিন ধরনা মঞ্চে যান তখন কয়েকজন আন্দোলনকারী তাঁদের পাশে থাকার অনুরোধ করেন। সেইমতোই একটি পোস্টার নিয়ে তিনিও আন্দোলনকারীদের পাশে বসেন। আর তখনই কেউ বা কারা তাঁর ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল করে বলে জানান সুদাম গিরি। একই সঙ্গে ওই যুবক স্পষ্ট জানান, তিনি কোনওদিন টেট পরীক্ষা দেননি। কিন্তু তা সত্ত্বেও তিনি এভাবে পোস্টার নিয়ে বসলেন কেন তা নিয়েই বেঁধেছে বিতর্ক।সুদাম গিরি জানান, পোস্টারে কি লেখাছিলো তা তিনি দেখেননি।নাম না করে বলেন সম্পূর্ণ অভিযোগটা তৃণমূলের থেকে করা হচ্ছে l

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

nineteen + eleven =