শিয়ালের হামলায় আহতদের বাড়িতে দেখা করতে এলেন এলাকার বিধায়ক তথা রাজ্যের প্রতিমন্ত্রী।চিকিৎসায় সমস্ত রকমভাবে সাহায্যের আশ্বাস দিলেন।মালদা জেলার হরিশ্চন্দ্রপুর থানা এলাকার ভালুকার কালীতলা গ্রামে গত সোমবার ভোরবেলা নাগাদ হঠাৎ শিয়ালের দল হানা দেয়।শিয়ালের দলের অতর্কিত আক্রমণে আতঙ্কিত হয়ে পড়ে গ্রামবাসী।শিয়ালের আক্রমণে গুরুতর ভাবে জখম হয়ে পাঁচ জন। ভালুকা গ্রামীণ হাসপাতালে তাদের প্রাথমিকভাবে চিকিৎসা করা হয়।সোমবার দিন বিধানসভায় থাকাকালীন সেই খবর পান হরিশ্চন্দ্রপুরের বিধায়ক তথা রাজ্যের প্রতিমন্ত্রী তাজমুল হোসেন।এই ব্যাপারে তিনি কথা বলেন বনমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের সঙ্গে। বন বিভাগের অধিকর্তাদের সঙ্গেও কথা বলে।এদিন বৃহস্পতিবার এলাকায় ফিরেই তিনি দেখা করতে যান আহতদের সঙ্গে।তিনি জানান বনমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন চিকিৎসা সংক্রান্ত সাহায্যের।শিয়ালের কামড়ে কারো আঙ্গুল, কারো চোখ, ক্ষতবিক্ষত হয়ে গেছে।তাদের চিকিৎসার ক্ষেত্রে যা যা করণীয় সব কিছু সাহায্য করা হবে বলে জানিয়েছেন বিধায়ক তাজমুল।

মন্ত্রী তাজমুল হোসেন বলেন,”আমি বিধানসভায় ছিলাম।এটা আমার দায়িত্ব তাই আমি ফিরেই দেখা করলাম।বনমন্ত্রী এবং বন বিভাগের সঙ্গে কথা বলেছি। চিকিৎসা সংক্রান্ত সমস্ত রকম সাহায্য আমরা করব।”

আক্রান্ত গ্রামবাসী মাহাতম রাম বলেন,”আজ আমাদের সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলেন আমাদের এলাকার বিধায়ক। আমরা গুরুতরভাবে জখম হয়েছি। চিকিৎসার জন্য উনি সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন।”

প্রসঙ্গত বিভিন্ন এলাকায় বন বিভাগের পক্ষ থেকে পরিবেশের ভারসাম্য বজায় রাখার জন্য শিয়াল ছাড়া হয়েছিল।কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে মাঝে মাঝে শিয়ালের দল ঢুকে পড়ছে গ্রামে। শিয়ালের দলের অতর্কিত আক্রমণে আক্রান্ত হচ্ছে গ্রামবাসীরা। সমগ্র ব্যাপারটি বনবিভাগকে দেখার জন্য বলেছেন এলাকার বিধায়ক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

four × five =