সোমবার প্রীতম সরকার নামে ১৭ বছরের এক কিশোরের অস্বাভাবিক মৃত্যু কিরে চাঞ্চল্য ছড়ালো সোদপুরে। পরিবারের তরফে ওই হোম কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে খড়দহ থানায় অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করা হয়েছে। মৃতের বাড়ি শ্যামনগর নাগবাগান রোডে।

পরিবার জানিয়েছে,প্রীতম ছোটবেলা থেকে আংশিক বিকারগ্রস্থ রোগী।একটুতেই রেগে গিয়ে মেজাজ হারিয়ে ফেলতো৷গত ১৬ এপ্রিল সোদপুরের একটি হোমে তাকে ভর্তি করে তার পরিবার । পরিবারের অভিযোগ, এদিন সকাল সাড়ে ন’টা নাগাদ হোম থেকে ফোন করে জানানো হয় প্রীতমের জ্বর এসেছে। এরপর দুপুর দুটো নাগাদ ফের ফোন করে জানানো হয় প্রীতমের অবস্থা ভালো নয়। তাকে কামারহাটি সাগরদত্ত হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং সেখানে আসতে বলে। কিন্তু পরিবারের লোক হাসপাতালে গিয়ে জানতে পারেন প্রীতম মারা গিয়েছে । শুধু তাই নয়, তাকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছিল । প্রীতমের সারা মুখ গ্যাঁজলায় ভর্তি থাকায় সন্দেহ হয় পরিবারের । বাবা পার্থ সরকার বলেন, ‘ছেলের মৃত্যু স্বাভাবিক নয়। এদিনই খড়দহ থানায় তিনি একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করেছেন’। প্রশ্ন তুলেছেন, যদি জ্বরেই ছেলের মৃত্যু হয়ে থাকে তাহলে মুখ থেকে গ্যাঁজলা বেরোবে কেন? পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। তবে আরো অভিযোগ,দীর্ঘ ৬ মাস ধরে তাদের ছেলে ওই হোমে থাকলেও ছেলের সঙ্গে পরিবারের লোকের কারোর দেখা করতে দিত না।মাত্র একবারই তাদেরকে দেখা করতে দেওয়া হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

14 − four =