গতকাল সন্ধ্যা নাগাদ শিয়ালদা বনগাঁ রেলপথের ঠাকুরনগর স্টেশন লাগোয়া রেললাইন থেকে রাজু গাজীর মৃতদেহ উদ্ধার করে বনগাঁ জিআরপি। প্রাথমিক তদন্তে রেল পুলিশ অনুমান করছে আত্মহত্যা করেছে রাজু, পাশাপাশি রাজুর আত্মীয় এবং বন্ধুরাও দাবি করেছে, পরীক্ষার রেজাল্ট খারাপ হয়েছে বলে রাজু আত্মহত্যা করেছে এটা মানতে পারছে না। ইতিমধ্যে রাজুর মৃত্যু নিয়ে বিতর্ক দেখা দিয়েছে। রাজু গাজীর বাড়ি উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার বাদুড়িয়া থানার চাতরা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়, অথচ তিনি কেন মসলন্দপুর স্টেশন থেকে তিনটে স্টেশন পরে গিয়ে আত্মহত্যা করলেন।

৯ অক্টেবর ২০১৭ প্রাথমিক টেট বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হলে, সে ও তার সাথীরা টেট পরীক্ষা নেওয়ার বিষয়ে আন্দোলন শুরু করে। অবশেষে ৩১ জানুয়ারী ২০২১ পরীক্ষা হয় এবং পরবর্তী সময়ে আন্দোলন করে চলতি বছরের ১০ জানুয়ারী ২০২২ টেট ফলপ্রকাশ হয়, ৯৮৯৬ জন প্রার্থী পাস করে।

কিন্তু প্রাথমিক পর্ষদ তাকে অকৃতকার্য জানায়, OBC A ক্যাটাগরিতে ৮২.৫ ( ৫৫ শতাংশ নম্বরে) টেট পাস হয়। সে RTI করে দেখতে পারে, তাঁর টেট স্কোর ৮২ আছে অর্থাৎ C TET নিয়ম অনুযায়ী পাস, কিন্তু রাজ্য সরকার প্রাথমিক পর্ষদ ৮২ নম্বরে গ্রহণ যোগ্য করেনি। সে বিষয়ে হাইকোর্ট আইনজীবীরা মামলা করেছে ও বিষয়টি বিচারাধীন রয়েছে।

তারপরে রাজু গাজী আইনজীবী সুদীপ্ত দাশগুপ্ত দ্বারা হাইকোর্ট মামলা করে। এই মর্মে প্রাথমিক টেট ২০১৭ পরীক্ষা ১৫০ টি প্রশ্ন মধ্যে ৮ টি প্রশ্নের উত্তর ভুল দেওয়া হয়েছে। মামলাটি আদালতে বিচারাধীন। ইতিপূর্বেই প্রাথমিক টেট ২০১৪ পরীক্ষা প্রশ্ন ভুল বিষয়ে আদালতের নির্দেশে অসংখ্য প্রার্থী চাকরি পাচ্ছেন।

রাজু গাজী এই সব কারণে দীর্ঘ দিন ধরে চাকরি না পাওয়ায় হতাশা মানসিক অবসাদে ভুগছিল। গতকাল রাতে ঠাকুরনগর স্টেশনের কাছে সে আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

17 − one =