নদীয়ায় রোগিণীর দেহে মিলল বিরল প্রজাতির কৃমি,ওষুধ একমাত্র মেলে ইউরোপ দেশগুলিতেই।

নদীয়ার কল্যাণী কলেজ অফ্ মেডিসিন এন্ড জেএনএম হাসপাতালে রোগিণীর দেহে মিলল বিরল প্রজাতির কৃমি,যা ভারতবর্ষে বিরল এমনটাই দাবী কলেজ অফ্ মেডিসিন এন্ড জেএনএম হাসপাতালের অধ্যক্ষ ও শল্য চিকিৎসক সুবিকাশ বিশ্বাসের।গত বুধবার অর্থাৎ ১১ই মে পিত্তনালীর সমস্যা নিয়ে কল্যাণী কলেজ অফ্ মেডিসিন এন্ড জেএনএম হাসপাতালে শল্য বিভাগে ভর্তি হন নদীয়ার গয়েশপুরের বাসিন্দা ৩৫ বছর বয়সের এক রোগিনী।শুক্রবার তিন সদস্যের চিকিৎসক দল প্রায় দু’ঘণ্টা ধরে অপারেশন করে রোগিনীর।

Choledocho – Duodenostomy নামে একটি অপারেশন হয় ওই রোগিণীর।মূলত পিত্তনালীর সাথে খাদ্যনালীর যোগস্থাপন করার সময় কিছু সমস্যা দেখতে পান চিকিৎসকরা।সেই সময় ৬টি কৃমি পিত্তনালী থেকে বের করেন চিকিৎসকরা।চিকিৎসকের দাবী, এই ধরনের কৃমি মূলত ইউরোপ দেশগুলি সহ চীন ও হংকং এর মানব শরীরে দেখা যায়।পশ্চিমবঙ্গ বা ভারতবর্ষে এই ধরনের কৃমি বিরল বলা যেতেই পারে,দাবী শল্য চিকিৎসক ও অধ্যক্ষ চিকিৎসক সুবিকাশ বিশ্বাসের।

এই কৃমির ওষুধ একমাত্র ইউরোপ দেশগুলিতে পাওয়া যায়।ফ্যাসিওলা হেফাটিকা নামের ৬টি কৃমি মিলল রোগিণীর দেহে।যদিও চিকিৎসার জন্য বিকল্প ওষুধের ব্যবস্থা করে রোগিনীকে দেওয়া হচ্ছে।সরকারি হাসপাতাল বিনা ব্যয়ে চিকিৎসা পেয়ে খুশি রোগীর আত্মীয়রা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

twenty − eleven =